প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস শুরু হয়েছিল জ্বর, সর্দি-কাশি ও গলা ব্যথার মতো উপসর্গ দিয়ে। তবে উপসর্গ বদলে প্রতিনিয়ত ভয়ঙ্কর হচ্ছে এই ভাইরাস।

আর আবহাওয়ার পরিবর্তনের ফলে হওয়া সাধারণ জ্বর, সর্দি-কাশির সঙ্গে এর তফাৎ বুঝে ওঠা বেশ কঠিন ছিল চিকিৎসক ও সাধারণ মানুষের।বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যখন জ্বর, সর্দি-কাশি, গলাব্যথাকে করোনার প্রাথমিক লক্ষণ বলে চিহ্নিত করলেন, তখন হার্টঅ্যাটাকের উপসর্গ নিয়ে হাজির হলো এ ভাইরাস।

একাধিক পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা বুঝতে পেরেছেন যে রোগীর হার্টঅ্যাটাক নয়, হৃদযন্ত্রের পেশিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছে, ততক্ষণে হয়তো অনেকের শরীরে সংক্রমিত হয়ে গেছে এই ভাইরাস।ইনফ্লুয়েঞ্জা আর হার্টঅ্যাটাকের উপসর্গের পর এবার গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার ছদ্মবেশে হাজির করোনা! একেই বিশেষজ্ঞরা ‘গ্যাস্ট্রো-করোনাভাইরাস’ বলে ব্যাখ্যা করছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পেটেব্যথা, পেট কামড়ানো, মোচড় দেয়া বা ডায়েরিয়ার মতো সমস্যা এই গ্যাস্ট্রো-করোনাভাইরাসের অন্যতম উপসর্গ।

আসুন জেনে নিই গ্যাস্ট্রো-করোনাভাইরাসের উপসর্গ সম্পর্কে-

১. পেটেব্যথা, পেট কামড়ানো, মোচড় দেয়া ও ডায়েরিয়া হতে পারে।

২. পেটব্যথা, পেট কামড়ানো, মোচড় দেয়া, পেট শক্ত হয়ে থাকার সঙ্গে জ্বর হতে পারে।

৩. পেট খারাপের সঙ্গে জ্বর, কাশির সমস্যাও বাড়তে থাকে।

কী করবেন?
২ থেকে ৩ দিন ধরে পেটব্যথা, পেট খারাপের সঙ্গে সঙ্গে জ্বর, কাশির মতো সমস্যাও যদি থাকে, তা হলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তথ্যসূত্র : জিনিউজ