সেপ্টেম্বরে খুলছে যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দেশে করোনা মহামারীর কারণে বন্ধ রয়েছে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চলমান রয়েছে অনলাইন ক্লাস থেকে শুরু করে টেলিভিশন ক্লাসও। এরই মধ্যে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি বা শেষ দিকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার চিন্তা আছে, তবে তা এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলায় পিইসি-জেএসসি-জেডিসি বাতিলের পরামর্শ আসলেও এখনও তাতে চূড়ান্ত সায় দেয়নি মন্ত্রণালয়। বরং সেপ্টেম্বর বা অক্টোবরে প্রতিষ্ঠান খুললে কীভাবে পরীক্ষা নেয়া যাবে, এই ব্যাপারে পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। সেপ্টেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব হলে চলতি বছরের মধ্যেই সিলেবাস কমিয়ে শিক্ষাবর্ষ শেষ করা হবে। তা সম্ভব না হলে চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হবে।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে হয়তো করোনার প্রকোপ কমে যাবে। যে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক সুবিধা নেই, সেখানে হয়তো সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্লাস কার্যক্রম চালানো যেতে পারে। তবে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থী হলে থেকে লেখাপড়া করে। সেক্ষেত্রে হলে তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা নিয়ে আমরা সন্দিহান।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে আমাদের অনেক কিছু ভাবতে হবে। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আমাদের শিক্ষকরা ইতোমধ্যেই এই বিষয় নিয়ে ভাবছেন। তবে আমরা হুট করে কোনো সিদ্ধান্ত নিবো না।

সূএ: বাংলাদেশ জার্নাল